শিক্ষা

কবে হবে ২০২৪ এর এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা যা বললেন শিক্ষামন্ত্রী

২০২৩ চলতি বছর এসএসসি পরীক্ষার আয়োজন নিয়ে নানা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়েছে। ইতি মধ্যে চিন্তায় রয়েছে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। পরীক্ষা হবে কিনা এ বিষয়ে চিন্তা। শর্ট সিলেবাস তিনটি সাবজেক্ট নিয়ে পরীক্ষা হবে বলে জানা যায়বর্তমানে সারাদেশের রাজনৈতিক ভাবে অস্থিতিশীল রয়েছে তাছাড়া করোনা সংক্রমণ দিন দিন বাড়তেছে এবং কোমতেছে ।

এসএসসি ২০২২

অন্য দিকে এখনো নানান জেলায় বন্যায় প্লাবিত হচ্ছে এবং ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে । বিশেষ করে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে রংপুরে এলাকায় বন্যায় প্লাবিত হয়ে। অনেকের বাড়ি ঘর ডুবে ভেঙে যায়

তাছাড়া আগস্ট মাসের মধ্যখানে সময়ে দেশের দক্ষিণাঞ্চলে ঝড় হওয়ার আশঙ্কা আছে এই অবস্থায় এসএসসি পরীক্ষা আয়োজন নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছে সবাই।এক্ষেত্রে অনেক শিক্ষার্থী দাবি জানাচ্ছে তিন বিষয় পরীক্ষা আয়োজন করার, কারণ এর আগে ২০২০ সালেরএইচএসসি পরীক্ষার ক্ষেত্রে সকল বিষয়ে অটো পাস দেয়া হয়েছিল তাছাড়া ২০২১ সালের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায়

শুধু মাত্র তিন বিষয়ে পরীক্ষা আয়োজন করা হয়ে ছিল। বাকি বিষয়গুলো সাবজেক্ট বাতিল করা হয়এ ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের দাবি রাখে তিন বিষয়ে পরীক্ষা নেওয়া হয় যেন । সর্বশেষ শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে তিন বিষয় পরীক্ষা ব্যাপারে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানিয়েছে।যেখানে বলা হয়েছে ইতিমধ্যে এসএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

এবং হওয়ার কথা থাকলেও শেষ সময়ে পরীক্ষা বন্ধ করা হলে সকল প্রস্তুতি আগে নেওয়া হয়ে ছিল।এক্ষেত্রে কোনভাবে শিক্ষা মন্ত্রী অটোপাস দিবেনা অর্থাৎ পরীক্ষা আয়োজন করা হবে।সাব্জেক্ট কমানোর ব্যাপারে শিক্ষা মন্ত্রী বলেন ইতিমধ্যে প্রশ্নপত্র তৈরি হয়েছে। তাছাড়া রাজনৈতিক এবং বন্যা পরিস্থিতি আশা করি কোন সমস্যা তৈরি করবে না বলে আশা করি ।তাছাড়া করোনা সংক্রমণ এখন বেশি নেই কারণ ২০২৩ সাল থেকেই সব শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হয়েছে।

তাই শিক্ষার্থীরা স্বাভাবিক নিয়মে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে। যদি পরিস্থিতি খারাপ হয় তখন সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা হতে পারে বলে মনে হয় ।তবে এখন কোন ধরনের সাবজেক্ট কমানোর সুযোগ নেই বলে মনে হয় ।

তাছাড়া বাকি সকল বিষয়ে অর্থাৎ বিজ্ঞান মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থীদের সব বিষয় পরীক্ষা দিতে হবে আশা করা হয়। পরীক্ষার নিয়ম পরিবর্তন করা হচ্ছে না তিন ঘণ্টার পরীক্ষা আয়োজন করা হবে। 100 নম্বরের পরিবর্তে পরীক্ষা করা হবে  এবং পরীক্ষার প্রশ্নপত্র তৈরি করা হচ্ছে শিক্ষার্থীরা যাচাই-বাছাই করে পরীক্ষার প্রশ্নের উত্তর দিতে পারবে।

এসএসসি পরীক্ষা ২০২৩ জরুরী নির্দেশনা — না জানলে মহাবিপদ

মাধ্যমিক পর্যায়ে চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষা ২০২৩ আগামী এপ্রিলে থেকে শুরু হবে বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নতুন রুটিন প্রকাশ করেছে।যেখানে দেখা গেছে আগামী এপ্রিলে বাংলা প্রথম পত্রের মাধ্যমে এসএসসি পরীক্ষা শুরু হবে বলে আশা করি ।এর পরবর্তীতে সকল বিষয় পরীক্ষা হবে।

অন্যদিকে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষা উপলক্ষে গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা প্রকাশ করেছে।যে বিষয়গুলোর ওপর গুরুত্ব দিয়ে পরীক্ষা করা হবে এই গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা গুলো শিক্ষার্থীদের জন্য জানা খুবই জরুরী এবং প্রয়োজনিয়

এসএসসি পরীক্ষা উপলক্ষে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে প্রকাশিত গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা নিচে দেওয়া হলো

১- কেন্দ্রসচিব ছাড়া অন্য কোন ব্যক্তি বা পরীক্ষার্থী পরীক্ষা কেন্দ্রে মোবাইল ফোন আনতে বা ব্যবহার করতে পারবে না সেদিকে খেয়াল রাখা ।

২- পরীক্ষায় পরীক্ষার্থীর জন্য নন প্রোগ্রামেবল সাইন্টিফিক ক্যালকুলেটর ব্যবহার করতে৷ পারবে এটা সূবিদা জনক।

৩ – কোন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় নিজ বিদ্যালয়ে বা প্রতিষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে না পরীক্ষার্থী হস্তান্তরের মাধ্যমে আসনবিন্যাস করতে হবে বলে জানা যায় ।

৪- প্রত্যেক পরীক্ষার্থী কেবল নিবন্ধনপত্র বর্ণিত বিষয়ে বিশেষ সময়ে পরীক্ষা অংশগ্রহণ করতে পারবে কোন অবস্থায় বিভিন্ন বিষয়ে পরীক্ষা দিতে পারবে না।

৫- পরীক্ষার্থীগণ তাদের নিজ নিজ উত্তরপত্রে ওএমআর ফরম এর পরীক্ষার রোল নম্বর। রেজিস্ট্রেশন নম্বর বিষয় কোড ইত্যাদির যথাযথভাবে লিখে বৃত্ত ভরাট করবে কোন অবস্থাতে উত্তরপত্র ভাঁজ করা যাবেনা এটা আবশ্যক।

৬- পরীক্ষার্থীকে সৃজনশীল বহুনির্বাচনী ব্যবহারিক অংশে পৃথক ভাবে পাশ করতে হবে আশা করি ।

৭- সকল শিক্ষাবর্ষে পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে শারীরিক শিক্ষা স্বাস্থ্যবিজ্ঞান ও খেলাধুলা ক্যারিয়ার শিক্ষা বিষয়ে এনটিসিবি এ নির্দেশনা অনুসারে ধারাবাহিক মূল্যায়ন করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে তার প্রাপ্ত নম্বর বেল কেন্দ্রকে সরবরাহ করতে হবে পরবর্তীতে কেন্দ্র ব্যবহৃত নম্বরের সাথে তার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে পাঠিয়ে দিবে বলে মনে হয়।

৮- পরীক্ষার্থীগণ তাদের প্রবেশপত্র নিজ নিজ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের নিকট হতে পরীক্ষায় কমপক্ষে তিন দিন পূর্বে সংগ্রহ করবে বলে মনে হয় ।

৯- প্রথমে বহুনির্বাচনি এবং পরে সৃজনশীল পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে উভয় পরীক্ষায় মধ্যে কোন ধরনের বিরোধী থাকবে না ।

১০- বহু নির্বাচনী পরীক্ষার ক্ষেত্রে ৩০ মিনিট এবং সৃজনশীল পরীক্ষার ক্ষেত্রে এক ঘন্টা ২.৩০ মিনিট সময় পাবে।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।