ট্রাভেল

রাশিয়া কেন পৃথিবীর সবচেয়ে বড় দেশ জানুন অতিত ইতিহাস

পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম রাষ্ট্র  রাশিয়া: রাশিয়ার মোট আয়তন কত! রাশিয়া বা রুশ ফেডারেশন আয়তনের দিক থেকে বর্তমান বিশ্বের বৃহত্তম রাষ্ট্র । হ্যালো বন্ধুরা আপনাদের সবাইকে স্বাগত জানিয়ে শুরু করছি আজকে একটি নতুন পোস্ট। আজকে জানাবো পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম রাষ্ট্র রাশিয়ার সম্পর্কে জানা-অজানা তথ্য। তাই আপনি যদি রাশিয়া দেশটির সম্পর্কে জানতে আগ্রহী হয়ে থাকেন তাহলে এই পোস্টটি আপনার জন্য। তাই স্কিপ না করে পুরো পোস্টটি মনোযোগ দিয়ে পড়ুন ।

রাশিয়ার মোট আয়তন কত

রাশিয়া দেশটি পৃথিবীর মোট ভূমির আট ভাগের এক ভাগ নিয়ে গঠিত

ইউরেশিয়ার কেন্দ্রীয় অঞ্চলে অবস্থিত রাশিয়ার মোট আয়তন কত এ দিক থেকে ইউরোপ, ওশেনিয়া ও অ্যান্টার্কটিকা, এই তিন মহাদেশের চেয়ে বড় বলে ধারণা করা হয়েছে এবং দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের চেয়ে সামান্য পরিমাণের ছোট। এটি বিশ্বের নবম জনবহুল দেশ দেশ বলে বিখ্যাত।
ভৌগোলিক বৈচিত্র্য : রাশিয়ার বিশাল ভূখণ্ড পশ্চিমে বাল্টিক সাগর থেকে পূর্বে প্রশান্ত মহাসাগর পর্যন্ত এবং উত্তরে আর্কটিক মহাসাগর থেকে দক্ষিণে কৃষ্ণসাগর ও ককেশাস পর্বতমালা পর্যন্ত বিস্তৃত বৃষ্টি তো রয়েছে এই এশিয়া দেশটি।

১৬টি রাষ্ট্রের সঙ্গে স্থল-সীমান্ত রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। উত্তর-পশ্চিম থেকে দক্ষিণ-পূর্ব পর্যন্ত নরওয়ে, ফিনল্যান্ড, এস্তোনিয়া, লাটভিয়া, লিথুয়ানিয়া ও পোল্যান্ড, বেলারুশ, ইউক্রেন, জর্জিয়া, আজারবাইজান, কাজাখস্তান, চীন, মঙ্গোলিয়া ও উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে সীমান্ত রয়েছে রাশিয়া দেশটির। ১১টি টাইম জোনে বিভক্ত রয়েছে এবং তুন্দ্রা, স্তেপ, তৈগা ও অর্ধ-মরু অঞ্চলে বিন্যস্ত রাশিয়াকে ‘ভৌগোলিক দানব’ বলা হয়।

রাশিয়ার সমুদ্র সীমানা

দেশটির জলবায় সবসময়ই চরমভাবাপন্ন প্রায় ৪০টি ইউনেসকো জীবমণ্ডল সংরক্ষণ এলাকা রয়েছে রাশিয়া দেশটিতে। ভাষা : প্রায় ৮০ শতাংশের রুশ ভাষায় কথা বলে, যা রাশিয়ার সরকারি ভাষা। এছাড়াও ৮০টির বেশি ভাষা প্রচলিত এই দেশটিতে । চেচেন ও তাতারের মতো কিছু ভাষার সরকারি মর্যাদা বর্তমানে রয়েছে। জার্মান, পোলিশসহ বেশকিছু মধ্য ইউরোপীয় ভাষাও প্রচলিত রয়েছে বলে জানা যায়।

অর্থনীতি : রাশিয়ার অর্থনীতি বিশ্বের দশম বৃহত্তম অর্থনীতি ব্যবস্থা বলে জানা গেছে। বিপুল খনিজ সম্পদ রয়েছে রাশিয়া দেশটি র। এই খনিজ সম্পদ দেশটিকে বিশ্বের বৃহত্তম মজুতদার হিসেবে তৈরি করেছে। এটি বিশ্বের সর্বোচ্চ তেল ও গ্যাস উৎপাদনকারী দেশ হিসাবে পরিচিত । দেশটি পারমাণবিক শক্তিসম্পন্ন পাঁচটি স্বীকৃত দেশের মধ্যে অন্যতম বলে জানা গেছে । রাশিয়ায় বিশ্বের বৃহত্তম ধ্বংসাত্মক অস্ত্রভাণ্ডার রয়েছে বলে জানা গিয়েছে । রাশিয়া একটি পরাক্রমশালী রাষ্ট্র যেটি জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য হিসাবে পরিচিত এবং জি২০-এর প্রভাবশালী সদস্য মধ্যে অন্যতম। স্বাধীন রাষ্ট্রসমূহের কমনওয়েলথ গঠিত হয়েছে সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নভুক্ত ও বিভিন্ন সংগঠন দেশগুলোকে নিয়ে। রাশিয়া কমনওয়েলথ প্রধানতম সদস্য।

শিক্ষা : রাশিয়ার শিক্ষা ব্যবস্থা ইউরোপের মধ্যে অষ্টম সেরা এবং বিশ্বে ১৪তম । কলেজ গ্র্যাজুয়েটদের মধ্যে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে স্নাতকদের সংখ্যা-বিবেচনায় রাশিয়া বিশ্বে তৃতীয় দেশ হিসেবে পরিচিত । শিক্ষাব্যবস্থা দুটি পর্যায়ে বিভক্ত। প্রথমত, প্রাক-প্রাথমিক ও প্রাথমিক শিক্ষা এবং মাধ্যমিক শিক্ষা নিয়ে জেনারেল এডুকেশন এই দেশটিতে রয়েছে। তাছাড়া রয়েছে ট্রেনিং, ভোকেশনাল ও উচ্চশিক্ষা মিলিয়ে প্রফেশনাল এডুকেশন। উচ্চশিক্ষা তুলনামূলক কম খরচের এই দেশটিতে হয়। সাধারণ শিক্ষায় সবার জন্য একই কারিকুলাম বলে জানা গিয়েছে।

সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য : শিল্পকলার বিভিন্ন শাখায় রাশিয়া দীর্ঘ ঐতিহ্যত বজায় রেখে চলে এসেছে । বিশেষ করে সাহিত্য,দর্শন, ধ্রুপদী সংগীত, ব্যালে নৃত্য,স্থাপত্য ও চিত্রকলা এবং চলচ্চিত্র ও অ্যানিমেশনে এগিয়ে রয়েছে রাশিয়া। বিশ্বসংস্কৃতিতে এসব শাখায় রুশদের বিশাল অবদান ওপ্রভাব রয়েছে তা লক্ষ করা যায়। রাজধানী মস্কোর ইভান বেল টাওয়ারে রক্ষিত বিশাল আকারে ঘণ্টার নাম ‘জার বেল’দেশটির বিখ্যাত পর্যটক কেন্দ্র। এটি পৃথিবী সপ্তমাশ্চার্যের একটি বলে মনে করা হয়। যদিও এই ঘন্টাটি এ-যাবত একবারও বাজানো হয়নি।

ঐতিহাসিক স্থানসমূহ: রাশিয়ায় ইউনেসকো স্বীকৃত প্রায় ২৬টি ঐতিহাসিকনিদর্শন পাওয়া গেছে। এগুলোর মধ্যে১৬টি সাংস্কৃতিক এবং ১০টি প্রাকৃতিক।

বন্ধুরা আজকে মত এতটুকুই। অন্য একটি নতুন বিষয় পোস্ট নিয়ে আবার দেখা হচ্ছে। পোস্টটি পড়ার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।