তথ্য ও প্রযুক্তি

বিশ্বের সবচেয়ে দামি গাড়ি যার দাম ২৫০ কোটি টাকা

হ্যালো বন্ধুরা ! আপনারা কি জানেন পৃথিবীর সবচেয়ে দামি গাড়ি কোনটি? আপনাদের অনেকের মধ্যেই এই প্রশ্নটি জগেছে যে পৃথিবীর সবচেয়ে দামি গাড়ি কোন কোম্পানির ?বিশ্বের সবচেয়ে দামি গাড়ি কোনটি? এই প্রশ্ন কেউ আপনাকে করলে হয়তো বলবেন, বিএমডাব্লিউ, মাসির্ডিজ কিংবা অডির নাম। কেউবা বলবেন রোলস রয়েসের কথাও। আপনার ধারণা ভুল নয়। এখন পর্যন্ত বিশ্বের দামি গাড়ির তমকা পেয়েছে এই কয়টি ব্র্যান্ড। তবে আগামীতে এই প্রশ্নের উত্তর হবে রোলস রয়েস। কেননা, বিশ্বের সবচেয়ে দামি গাড়ি নির্মাণে হাত দিয়েছে ইতালির প্রতিষ্ঠানটি।

বিশ্বের দামি গাড়ি

রোলস রয়েসের তৈরি গাড়ি আভিজাত্যের প্রতীক

রোলস রয়েসের তৈরি গাড়ি আভিজাত্যের প্রতীক। বিলাসীও। রোলস রয়েস তার গাড়ির বৈশিষ্ট্য ও বিলাসবহুল ফিচারেরর জন্য সারা বিশ্বে বিখ্যাত।
প্রতিষ্ঠানটি পৃথিবীর সবচেয়ে দামি গাড়ি ‘বোট টেইল’ শিগগিরই বাজারে আনতে চলেছে। চলতি বছরের ২২-২৩ মে ইতালির লেক কোমোরে বিলাসবহুল ইভেন্ট ভিলা ডি’এস্টেতে এই গাড়ি প্রদর্শিত হয়। যদিও রোলস রয়েসের বোট টেইল মডেলটি কিছুদিন আগেই তৈরি হয়েছে। এবার এর সঙ্গে বিলাসী ফিচার যোগ করে দ্বিতীয় ইউনিট বাজারে আসছে।

বোট টেইলের দ্বিতীয় ইউনিটটি ১৯ ফুট দৈর্ঘ্যের মোড়ানো উইন্ডশিল্ডসহ গাড়িটি বাজারে আসবে গাড়িটির বিভিন্ন অংশে কাঠ ব্যবহার করা হবে-

বোট টেলের মাত্র তিনটি মডেল তৈরি করবে কোম্পানি। যার দাম হবে ২৫০ কোটি টাকা।রোলস রয়েস এই গাড়ির প্রথম ইউনিটটি ২০২১ সালের অক্টোবরে প্রথম এসেছিল। যেটি সম্পূর্ণ হাতে তৈরি। এই বছর এই গাড়ির দ্বিতীয় ইউনিটটি দেখানো হবে।রোলস-রয়েস বোট টেইল গাড়ির দ্বিতীয় ইউনিট সম্পর্কে কোনও বিবরণ প্রকাশ করেনি এর নির্মাতা প্রতিষ্ঠান। তবে আশা করা হচ্ছে, এই গাড়িটি প্রথম মডেলের থেকে অনেকটাই আলাদা হবে।এই গাড়ির ইন্টেরিয়র ও বডিওয়ার্ক গ্রাহকদের চাহিদামাফিক ডিজাইনে তৈরি করা হবে।

হাই কোয়ালিটি সিকিউরিটি সিস্টেম

বোট টেইলের দ্বিতীয় ইউনিটটি আগের ভার্সনের মতোই টুইন-টার্বো ৬.৭ লিটারের ভি১২ ইঞ্জিন ব্যবহার করা হচ্ছে। যা রোলস-রয়েস রেঞ্জের অন্য মডেলগুলোতে দেখা যায়।এই ইঞ্জিনটি কালিনান ও ফ্যান্টম মডেলেও ব্যবহার হয়েছে। শক্তিশালী এই ইঞ্জিন ৫৬৩ হর্স পাওয়ার পর্যন্ত শক্তি উৎপাদন করতে সক্ষম।

বন্ধুরা ধারণা করা হচ্ছে যে পৃথিবীর সবথেকে দামি ব্রান্ড BMW তাদের একটি নতুন কার নিয়ে আসতে চলেছে যার মধ্যে থাকবে কিছু আধুনিক ফিউচার। এই গাড়িটা থাকবে হাই কোয়ালিটি সিকিউরিটি সিস্টেম এবং কিছু নতুন আপডেট। আরো জানা যাচ্ছে যে এই গাড়িটি তাদের কোম্পানির সবথেকে বড় এবং আধুনিক ফিউচার দিয়ে তাদের কোম্পানির সব থেকে স্টাইলিশ গাড়ি হতে চলেছে। গাইতে লঞ্চ হতে পারে 2030 সাল নাগাল।

বন্ধুরা এই ছিল কয়েকটি পৃথিবীর বিশ্ব ব্রান্ডের গাড়ির তথ্য। এরকমই নতুন নতুন বিষয় জানার যদি আপনার আগ্রহ থাকে তাহলে আপনি আমাদের ওয়েবসাইটটি প্রতিনিয়ত ভিজিট করতে পারেন। আমাদের এই ওয়েবসাইটিতে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন আপডেট তথ্য প্রদান করা হয়। যেগুলো আপনাদের জীবনের কাজে দরকারি হতে পারে । আর বন্ধুরা পোস্টটি যদি আপনাদের ভালো লাগে তাহলে কমেন্ট বক্সে একটি কমেন্ট করবেন। আর পোস্ট করার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।