লাইফস্টাইল

মেয়েদের ১০ টি স্থায়ীভাবে ফর্সা হওয়ার ক্রিমের নাম

মুখের ক্রিম

মুখের ক্রিম হ্যালো বন্ধুরা আশা করি সকলেইভালো আছেন। আমরা সকলেই বর্তমান সময়ে নিজেকে আরো উজ্জ্বল এবং আকর্ষণীয় করে অন্যের সামনে উপস্থাপন করতে অনেক পছন্দ করি।

আর এজন্য যারা একটু শ্যামলা বর্ণের তারা নিজেদের স্কিনকে আরো উজ্জ্বল করার জন্য বিভিন্ন ধরনের ক্রিম ব্যবহার করি এবং এসব ক্রিমের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া না জেনেই আমরা তা ব্যবহার করি। ফলে আমাদের স্কিনের উপকারিতার চেয়ে অপকারিতাই বেশি দেখা যায়। তবে চিন্তা নেই আজকে আমরা আপনাদের জন্য সেরা ১০টি ত্বক ফর্সা করার ক্রিম নিয়ে এসেছি। যা আপনারা ব্যবহার করলে ১০০% ফলাফল পাবেন আশা করা যায়।

কারণ আমরা এসব ক্রিম নিয়ে পরীক্ষা করে দেখেছি এগুলো ন্যাচারাল উপাদান দিয়ে তৈরি। যা আপনার ত্বককে আরো উজ্জ্বল ও আকর্ষণীয় করতে সহায়তা করে। আজকের এই ক্রিমগুলো কিছু তৈলাক্ত ত্বকের জন্য, কিছু শুষ্ক ত্বকের জন্য, কিছু আছে, ডে ক্রিম, কিছু আছে নাইট ক্রীম। এই লিস্টের মধ্যে আপনি আপনার ত্বকের জন্য সঠিক ক্রিমটি অবশ্যই খুঁজে পাবেন।

বিভিন্ন মুখের ক্রিম এর নাম ও দাম

সূর্যরশ্মি , ধুলা, আর দূষণের কারনে আমরা আমাদের প্রাকৃতিক গায়ের রঙ হারিয়ে ফেলি। অল্প বয়সী মেয়েদের এই সমস্যা আরও প্রকট হয় কারণ তারা সূর্যরশ্মিতে বেশী সময় থাকে আর সমস্যায়ও ওরা বেশী ভোগে । এই সব সমস্যার কারনে আমরা আমাদের গায়ের রঙের পরিবর্তন করতে চাই।

আমি সব সময় বলি কেনা পণ্যের চেয়ে ঘরোয়া পণ্যের মাধ্যমে রূপচর্চা অনেক বেশী নিরাপদ। কিন্তু সব সময় এই সব ঘরোয়া পর্দ্ধতি চর্চা করা সম্ভব হয় নয় তাই ফেয়ারনেস ক্রিমের উপর নির্ভর করতে হয়।

আর আজকে আমরা এরকমই ১০টি সেরা ফেয়ারনেস ক্রিম সম্পর্কে আপনাদেরকে জানাবো। যে ক্রিমগুলো ব্যবহার করার মাধ্যমে মুখের সমস্ত কালো দাগ দূর করতে পারবেন খুব সহজে। তাহলে চলুন জেনে নেই।

১) গারনিয়ার ন্যাচারাল হোয়াইট কমপ্লিট মাল্টি একশান ফেয়ারনেস মুখের ক্রিম এস পি এফ ১৭-ত্বক ফর্সা করার জন্য এর মধ্যে আছে একটি অতি উত্তম এজেন্ট যা ভিটামিন সি এর তুলনায় ১০ গুন বেশী শক্তিশালী। ভিটামিন সি কে বলা হয় ত্বক ফর্সাকারী এজেন্ট। এটি ত্বককে ইউভিএ / ইউভিবি রশ্মি থেকে রক্ষা করে। পাশাপাশি দুই সপ্তাহের মধ্যে ত্বকের রঙ ফর্সা করে তোলে।গারনিয়ার ফেয়ার নেস ক্রিমের মূল্য – ১৮ গ্রামের দাম ১৮০- ২২০ টাকা ।

২)ল্যাকমে পারফেক্ট রেডিয়েন্স ইনটেন্স হোয়াইটেনিং ডে ক্রিম –ল্যাকমে স্কিন হোয়াটেনিং ক্রিমটি একটি গ্রে রঙের জারে থাকে। এটি সব ধরণের ত্বকের জন্য এবং ছেলে ও মেয়ে সবাই ব্যবহার করতে পারেন। এই ক্রিমে আছে ভিটামিন বি৩ যা ত্বকে পুষ্টি দেয় ও সাথে সাথে ত্বক উজ্জ্বল করে তোলে। এর ভেজস উপাদান আপনার ত্বক মসৃণ করে তুলবে।ল্যাকমে পারফেক্ট রেডিয়েন্স ইনটেন্স হোয়াইটেনিং ডে ক্রিম এর মূল্য, ৫০ গ্রামের দাম- ৭০০ টাকা থেকে ৭৫০ টাকা।

৩) ল’ রিয়েল প্যারিস স্কিন পারফেক্ট এন্টি-ইমপারফেকসান্স অ্যান্ড হোয়াইটেনিং মুখের ক্রিম- ল’ রিয়েল এর এটি একটি নুতন ক্রিম ত্বকের জন্য। বছরের পর বছর ধরে ল’ রিয়েল অনেক অনেক ত্বকের যত্নের ক্রিম বাজারে এনেছে। এই ক্রিমটিতে আছে ভিটামিন বি৩, ভিটামিন ই ও সি। তাই এটি আপনার ত্বক শুধু ফর্সা করবে তাই নয় বরং আপনার ত্বকের বয়স বাড়তেও দেবে না। আপনার ত্বক রাখবে চিরতরুন। আমি নিজে এটি ব্যবহার করি। এটা সব ধরণের ত্বকে ব্যবহার করা যায়। তবে খুব শুষ্ক ত্বকে এটি ময়েসচারাইজ করতে পারে না।লল’ রিয়েল প্যারিস স্কিন পারফেক্ট এন্টি-ইমপারফেকসান্স অ্যান্ড হোয়াইটেনিং ক্রিম (l’oreal paris skin perfect anti-imperfections and whitening cream) এর মূল্য – ২০ মিলি. এর দাম -২২০ টাকা ।

৪) বায়োটিক বায়ো কোকোনাট হোয়াইটেনং অ্যান্ড ব্রাইটেনিং ক্রিম- বায়োটিক ত্বক ও চুলের জন্য একটি ভেজস ব্র্যান্ড। এই ক্রিমে আছে এক্সট্রা ভার্জিন নারকেল তেল ও অন্যান্য ভেজস উপাদান। এটি শুষ্ক ত্বকের ফর্সাকারী হিসেবে ও ময়েসচারাইজের জন্য খুব ভাল। তবে যাদের তৈলাক্ত ত্বক তাদের জন্য এটা আমি সুপারিশ করব না। কারণ এটি একটু তেলতেলে ক্রিম যা ত্বকের পোর ব্লক করে দিতে পারে। বায়োটিক বায়ো কোকোনাট হোয়াইটেনং অ্যান্ড ব্রাইটেনিং ক্রিম(biotique bio coconut whitening & brightening cream) এর মূল্য-৫০ গ্রামের প্যাকেটের দাম ৪৫০ টাকা।

৫) ফেয়ার এন্ড লাভলী মাল্টি ভিটামিন ফেয়ারনেস ক্রিম উইথ এসপি এফ ১৫ ক্রিম – ফেয়ার এন্ড লাভলী হল সবচেয়ে জনপ্রিয় রঙ ফরসাকারি ক্রিম। আশা করি আপনারা সবাই এটি স্বীকার করবেন। এর নতন সংস্করনটি ব্যবহার অনেক সহজ। আর এতে আছে এসপিএফ ও সাথে মাল্টি ভিটামিন। এটি প্রতিদিনের ব্যবহারের জন্য ভাল। যাদের ত্বক তৈলাক্ত ও মিশ্র ধরণের তাদের জন্য পরামর্শ হল। শুধু এই ক্রিম এর উপর ভরসা না করে প্রতি সপ্তাহে অন্তত দুবার ত্বক এক্সফলিয়েট করবেন । এটা আপনার ত্বকে একটি আলাদা প্রভাব ফেলবে।ফেয়ার এন্ড লাভলী মাল্টি ভিটামিন ফেয়ারনেস ক্রিম(fair and lovely multivitamin fairness cream) উইথ এসপিএফ ১৫ ক্রিমের মূল্য- ৫০ গ্রামের দাম ২২০ টাকা।

৬) ভিএলসিসি স্নিগ্ধ ফেয়ারনেস ক্রিম- ভিএলসিসি এর এই ক্রিম দাবি করে যে, এটা ত্বককে টান টান আর মসৃণ করার সাথে সাথে ত্বকের পিগমেন্টেসান সমস্যাও দূর করে। এতে আছে কাঁচা হলুদ, লেবুর খোসা, তুঁত এবং যষ্টিমধু। যষ্টিমধুন আপনার ত্বক উজ্জ্বল করে। আর লেবুর খোসা ও হলুদ ত্বকের টেক্সচার উন্নত করে। সাথে সাথে ত্বকের দাগও দূর করে। তুঁত আপনার ত্বকে মেলানিন তৈরি করতে বাধা দেয়। এই ত্বক ফর্সাকারী ক্রিমে আছে এসপিএফ ২৫ । এটি তৈলাক্ত ত্বকের জন্য সঠিক বাছাই নাও হতে পারে।ভিএলসিসি স্নিগ্ধ ফেয়ারনেস ক্রিম(vlcc fairness cream) এর মূল্য – ৫০ মিলি. এর দাম ৮২০ টাকা।

৭) রেভলন টাচ অ্যান্ড গ্লো এডভান্স ফেয়ারনেস ক্রিম- এটি হালকা গোলাপি ও সাদা টিউবে পাওয়া যায় । এতে রয়েছে সান স্ক্রিন। যা দিনের বেলায় আপনি অনায়াসেই ব্যবহার করতে পারবেন। এছাড়া রয়েছে ভিটামিন ও মধু। যা ত্বকের বার্ধক্য রোধ করে ও ত্বক ফর্সা করে।রেভলন টাচ অ্যান্ড গ্লো এডভান্স ফেয়ারনেস ক্রিম(revlon touch and glow advanced fairness cream) এর মূল্য- ৭৫ গ্রামের দাম ৪৯০ টাকা।

৮) হিমালয়া হারবাল ফেয়ারনেস ক্রিম- হিমালয়া হারবাল ফেয়ারনেস ক্রিমে আছে প্রাকৃতিক নির্যাস। যেমন এলোভেরা, ওয়ালনাট, কমলা, গোলাপ ইত্যাদির নির্যাস যা ত্বকে অনেক ধরণের কাজ করে। এটি স্কিন টোন করে, দাগ দূর করে ও ত্বক মসৃণ করে তেলতেলে করা ছাড়াই। এতে কোন ব্লিচিং এজেন্ট নেই তাই ত্বকে একটি প্রাকৃতিক ফেয়ারনেস দেয়ে।হিমালয়া হারবাল ফেয়ারনেস ক্রিম (himalaya herbal fairness cream) এর মুল্য -১৭০ টাকা।

৯) লোটাস হারবাল হোয়াইট গ্লো স্কিন হোয়াইটেনিং অ্যান্ড ব্রাইটেনিং জেল ক্রিম- যাদের ত্বক তৈলাক্ত তাদের ত্বক ফর্সা করার জন্য লোটাস হারবাল জেল ক্রিমটি পারফেক্ট। এটার ক্রিমি ফর্মুলা যার ওজন হালকা ও ত্বকের পোর বল্ক করে না বা ত্বককে আরও তেলতেলেও করে ফেলে না। এটা খুব দ্রুত ত্বকে মিশে যায় ও ত্বক উজ্জ্বল করে। এর এসপিএফ ২৫ এটাকে একটি সঠিক ডে ক্রিমে পরিণত করেছে।লোটাস হারবাল হোয়াইট গ্লো স্কিন হোয়াইটেনিং অ্যান্ড ব্রাইটেনিং জেল ক্রিম এর মূল্য- সবচেয়ে ছোট সাইজের দাম ২২০ টাকা।

১০) ওলে ন্যাচারাল হোয়াইট ইনস্ট্যান্ট গ্লোইং ফেয়ারনেস সিরাম – ওলে এর সবচেয়ে বড় বাজারজাতকরন ক্রিম হল এটি। এটা ওজনে হালকা স্কিন সিরাম যা ত্বকের রঙ ফর্সা করে। সহজে ত্বকে মিশে যায় আর এটা তেলতেলে নয়। তাই তৈলাক্ত ত্বকের জন্যও ভাল। তবে শুষ্ক ত্বকের সবাইও এটা ব্যবহার করতে পারবেন। ওলে ন্যাচারাল হোয়াইট ইনস্ট্যান্ট গ্লোইং ফেয়ারনেস সিরাম (olay natural white instant glowing fairness serum) এর মূল্য -২০ গ্রামের টিউবের দাম -১৯০ টাকা।

এক নজরে সকল ফেয়ারনেস ক্রিমের দাম

                 ক্রিমের নাম                গ্রাম বা পরিমাণ                        দাম
গারনিয়ার ফেয়ারনেস ১৮ গ্রাম ১৮০-২২০ টাকা
ল্যাকমে পারফেক্ট রেডিয়েন্স ইনটেন্স হোয়াইটেনিং ডে ক্রিম ৫০ গ্রাম ৭০০-৭৫০ টাকা
ল’ রিয়েল প্যারিস স্কিন পারফেক্ট এন্টি-ইমপারফেকসান্স অ্যান্ড হোয়াইটেনিং ক্রিম ২০ গ্রাম ২২০ টাকা
বায়োটিক বায়ো কোকোনাট হোয়াইটেনং অ্যান্ড ব্রাইটেনিং ক্রিম ৫০ গ্রাম ৪৫০ টাকা
ফেয়ার এন্ড লাভলী মাল্টি ভিটামিন ফেয়ারনেস উইথ এসপিএফ ১৫ ক্রিম ৫০ গ্রাম ২২০ টাকা
ভিএলসিসি স্নিগ্ধ ফেয়ারনেস ক্রিম  ৫০ গ্রাম ৮২০ টাকা
রেভলন টাচ অ্যান্ড গ্লো এডভান্স ফেয়ারনেস ক্রিম ৭৫ গ্রাম ৪৯০ টাকা
হিমালয়া হারবাল ফেয়ারনেস ক্রিম ১টি কৌটা ১৭০ টাকা
লোটাস হারবাল হোয়াইট গ্লো স্কিন হোয়াইটেনিং অ্যান্ড ব্রাইটেনিং জেল ক্রিম ২৫ গ্রাম ২২০ টাকা
ওলে ন্যাচারাল হোয়াইট ইনস্ট্যান্ট গ্লোইং ফেয়ারনেস সিরাম ২০ গ্রাম ১৯০ টাকা

ফেয়ারনেস ক্রিম ব্যবহারের নিয়ম

আমরা গায়ের রং ফর্সা করার জন্য যে ক্রিম গুলো ব্যবহার করি সেই ক্রিমগুলো অবশ্যই ব্যবহারের পূর্বে প্যাকেটের গায়ে লেখা সতর্কতা অবলম্বন করে চলবো। অনেকেই জানিনা ফেয়ারনেস ক্রিম গুলো কখন ব্যবহার করতে হয়। আবার অনেকে না জেনে এই ক্রিমগুলো দিনের বিভিন্ন সময় ব্যবহার করে।

তবে মনে রাখবেন এই ক্রিম গুলো ব্যবহার করার সঠিক সময় রাতে। আপনি যখন রাতে ঘুমাতে যাবেন তখন ঘুমানোর আগে খুব ভালোভাবে ফেসওয়াশ দিয়ে আপনার মুখ ধুয়ে নিয়ে যে ক্রিমটি আপনার ফেসওয়াশের জন্য পারফেক্ট সেই ক্রিমটি স্কিনে দিয়ে খুব সুন্দর করে মালিশ করতে হবে।

এরপর ঘুমাতে যেতে হবে এবং সকালে ঘুম থেকে উঠে পুনরায় ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিতে হবে। এভাবে আপনি ফর্সা হওয়ার ফেয়ারনেস ক্রিমগুলো ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়াও কিছু কিছু ক্রিম রয়েছে যেগুলো রোদে গেলে ব্যবহার করতে হয়। অর্থাৎ এই ক্রিমগুলো রোদের ক্ষতিকর রশি থেকে আপনার ত্বককে রক্ষা করে। এই ক্ষেত্রেও আপনি অবশ্যই রোদ থেকে আসার পর ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ভালোভাবে ধুয়ে নিবেন।

ফেয়ারনেস ক্রিম ব্যবহারের সুফল

বর্তমান সময়ে আমরা দেখে থাকি ম্যাক্সিমাম ছেলে মেয়ে নিজের ত্বককে ফর্সা করার জন্য বিভিন্ন ধরনের ফেয়ারনেস ক্রিম গুলো ব্যবহার করে। মানুষের শরীর মূলত কালো দেখায় তার মেলানিনের কারণে। যার শরীরে যত বেশি মেলানিন উপস্থিত থাকে সে তত বেশি কালো দেখায়।

আরেকটি বিষয় আমাদের মনে রাখতে হবে মেলানিন আমাদের শরীরকে সূর্যের অতি বেগুনি রশি থেকে রক্ষা করে। আর সূর্যের এই অতি বেগুনি রশি আমাদের শরীরে ক্যান্সার সৃষ্টি করতে পারে। তাই শরীরের মধ্যে মেলানিন থাকাটা আবশ্যক। তবে বর্তমান সময়ে আমরা দেখে থাকি সমাজের সকল ছেলেমেয়ে বিশেষ করে মেয়েরা অনেক ফর্সা হয়ে থাকে। আর এসব মেয়েরা ফর্সা হওয়ার জন্য বিভিন্ন ধরনের ক্রিম ব্যবহার করে।

এর একটি ভালো দিক হলো, যেসব মেয়ে আগে দেখতে অনেক কালো এবং বিশ্রী ছিল তারা এখন সমাজের সকলের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পাচ্ছে এবং তার জীবন যাপনের মানকে আরো উন্নত করছে। ফলে উজ্জ্বল ভবিষ্যতের দিকে সে অনেকটাই এগিয়ে যাচ্ছে। এর ফলে দেখা যাচ্ছে সমাজের নিম্নবিত্ত পরিবারের মেয়েটিও বা ছেলেটিও এখন আর তার স্কিনের কালো চামড়ার জন্য অন্যের কাছে উপহাস হতে হয় না। মুখের ক্রিম যা একটি অত্যন্ত ভালো দিক বলে আমরা মনে করি।

ফেয়ারনেস ক্রিম ব্যবহারের কুফল

আমরা যেরকম ভাবে নিজেকে উজ্জ্বল এবং আরও স্মার্ট করে অন্যের সামনে উপস্থাপন করার জন্য বিভিন্ন ধরনের ফেয়ারনেস ক্রিমগুলো ব্যবহার করছি ঠিক তার বিপরীত পাশের লক্ষ্য করলে দেখা যায় এসব ক্রিমে আবার অনেক খারাপ উপাদান যা শরীরের ক্ষতি করতে পারে ব্যবহার করা হচ্ছে।

এর ফলে দেখা যাচ্ছে চর্মরোগ, ত্বকের সৌন্দর্য নষ্ট সহ ক্যান্সার হওয়ার মতো ঝুঁকি। আবার অনেকেই রয়েছি আয়ুর্বেদিক বা হারবাল প্রোডাক্টের ফেয়ারনেস ক্রিম গুলো ব্যবহার করি। এতে করে তারা মনে করে হয়তো এসব ক্রিমে কোন খারাপ উপাদান নেই। কিন্তু একটি বিষয় মনে রাখবেন দীর্ঘমেয়াদি কোন কসমেটিক প্রসাধনীকে রাখার জন্য অবশ্যই তার মধ্যে কিছু বিশেষ উপাদান সংযুক্ত করা হয়।

আর এসব উপাদানই আমাদের শরীরের জন্য ক্যান্সারের কারণ বয়ে নিয়ে আসতে পারে। তাই আমরা সকলেই প্রাকৃতিক সৌন্দর্যই নিজের সৌন্দর্যকে উপস্থাপন করতে চেষ্টা করবো। এতে করে আমাদের জন্য যেরকম ভালো হবে ঠিক একই ভাবে এসব প্রসাধনের পেছনে বিপুল পরিমাণ অর্থ খরচ কমবে।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।